লামায় মিথ্যা মামলা ও মাছের প্রজেক্ট দখল করার চেষ্টার অভিযোগ

জাহিদ হাসান, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট।
  • আপডেট টাইম : ডিসেম্বর ১২ ২০২০, ১৩:৪৫
  • 770 বার পঠিত
লামায় মিথ্যা মামলা ও মাছের প্রজেক্ট দখল করার চেষ্টার অভিযোগ

 

মোঃ আলমগীর, বিশেষ প্রতিনিধি।

বান্দরবানের লামা উপজেলার ০৬নং রূপসী পাড়া ইউনিয়নের ০১নং ওয়ার্ড পূর্ব শিলেরতুয়ায় ৩য় শ্রেণির জায়গার কাগজ দিয়ে ১ম শ্রেণির জায়গার মালিককে বিভিন্ন মিথ্যা মামলা-হামলা দিয়ে হয়রানি ও দখলের চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে।স্থানীয় সূ্ত্রে জানা যায় সিদ্দিক আহম্মেদ কারবারী দীর্ঘ্য দিনের ভোগ দখলীয় জমি প্রতিপক্ষ মৃত হাকিম আলীর পরিবার জাফর আলম(৩০) ও বেলাল হোসেন(২৭) তাদের পরিবার সি্দ্দিক আহম্মদের পরিবারকে মিথ্যা মামলা-হামলা দিয়ে প্রতিনিয়ত হয়রানি করেন।বর্তমানে বিভিন্ন আদালতে কয়েকটি মামলাও রয়েছে।২০/১০/২০২০ ইং তারিখে লামা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ফোজদার কার্যবিধি ১৪৪ধারা মিসসিআর. মামলা নং ১৮/২০ জাফর আলমের পরিবার দায়ের করেন।সিদ্দিক আহাম্মদের ছেলে সিরাজুল ইসলাম(৩৫) অভিযোগ করে জানান ‘এই মামলা তদন্তকারীর তদন্ত সত্য নয়।’ উক্ত মামলায় হাজির হওয়ার জন্য বাদীকে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আদালত থেকে ০৫/১০/২০২০ইং তারিখে একটি নোটিশ প্রদান করেন। উক্ত তারিখে বাদী হাজির হয়। ০৫/১০/২০২০ইং তারিখে আদালত না বসার কারণে পরবর্তী নোটিশ আমি পাইনি। পরে এককভাবে ৬০ দিনের জন্য একটি ১৪৪ ধারা জারি করেন। পরবর্তীতে সেই মামলার কাগজ দিয়ে প্রতিপক্ষ জোরপূর্বকভাবে আমার মাছের প্রজেক্টটি দখলের চেষ্টা করেন।সাংবাদিকদের কাছে লিখিতভাবে অভিযোগ করে জানান মামলাটি বাতিলসহ হয়রানি থেকে রক্ষা পেতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন ক্ষতিগ্রস্থ সিদ্দিক আহম্মদের পরিবার।সিদ্দিক আহম্মদের পরিবার থেকে প্রতিপক্ষ জাফল আলমের বিরু্দ্ধে কয়েকটি মামলা আদালতে চলামান রয়েছে মামলা নং ৫৮/২০ এ বিষয়ে মিসসিআর. মামলা নং ১৮/২০ বিগত ০৭/১০/২০ইং তারিখের রায়ের বিষয়ে বান্দরবান দায়রা জজ আদালত ফৌজদারী রিভিশন মামলা নং-৫৭/২৯/১০/২০ইং তারিখে আপিল করেন। মাননীয় বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালত পিটিশন মামলা নং-১৪৩/২০২০।এমসিআর-৫৮/২০ আমার ভাই আব্দুল মান্নান, পিতা-মৃত সিদ্দিক আহম্মদ এই মামলা গুলো চলামান থাকা সত্ত্বেও কিছু প্রভাবশালী মহল নিয়ে আমার মাছের প্রজেক্ট দখল করার চেষ্টা করেন এবং আমাকে প্রাণ নাশের হুমকি দেন।এছাড়াও উক্ত প্রজেক্টের উত্তর পাশে আরো দুটি প্রজেক্ট প্রতিপক্ষের পরিবার জোরপূর্বকভাবে দখল করেছেন।সিদ্দিক আহম্মদের ছেলে মোঃ সিরাজুল ইসলাম সাংবাদিকদের দেখতে পেয়ে লিখিত অভিযোগ জানান। সাংবাদিক ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ঘটনার সত্যতা পান।মোঃ সিরাজুল ইসলাম দাবি করেন তার মরহুম পিতার নামে ০৪একর ৩য় শ্রেণীর ও ৪৫৯নং হোল্ডিং এর ৫একর ১ম ও ৩য় শ্রেণীর জমি এবং আমার ক্রয়কৃত ৪৪৮নং হোল্ডিং এর ১.২৯শতক ২য় শ্রেণীর জমি আছে মর্মে জানান।এলাকাবাসী জানায়, সাহেব আলী(৫০),সিরাজ মিয়া(৬২)সহ আরো অনেকে জানান জমির ভোগদখলীয় মূল মালিক সিদ্দিক আহম্মদ। ১নং ওয়ার্ড ৬নং রূপসী পাড়া ইউ.পি মেম্বার আবু তাহের জানান ঘটনাটি সত্য ও খুব দুঃখজনক।জাফর আলম একজন মামলাবাজ লোক।সাংবাদিকের জিজ্ঞাসাবাদে জাফর আলমগণ জানান লামা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আদালত থেকে আমি ৬০ দিনের জন্য একটি রায় পেয়েছি। তাই মাছের প্রজেক্ট ভরাট করতেছি। আমরা আদেশনামা দেখতে চাইলে একটি আদেশনামা নিয়ে আসেন।উক্ত আদেশনামায় ৬০দিন উল্লেখ থাকলেও ৫দিন আগে মেয়াদ শেষ হয়ে যায়।

Please follow and like us:
এই ক্যাটাগরীর আরো খবর

বিজ্ঞাপন