পাঠদানের অনুমতির মেয়াদ বৃদ্ধি মুলাদীতে ভাঙ্গন কবলিত চরাঞ্চলে শিক্ষার আলো ছড়াচ্ছে

জাহিদ হাসান, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট।
  • আপডেট টাইম : ডিসেম্বর ২৮ ২০১৯, ০৯:৩২
  • 951 বার পঠিত
পাঠদানের অনুমতির মেয়াদ বৃদ্ধি মুলাদীতে ভাঙ্গন কবলিত চরাঞ্চলে শিক্ষার আলো ছড়াচ্ছে

 

মুলাদীতে ভাঙ্গন কবলিত, অবহেলিত চরাঞ্চলের সাধারণ মানুষের মাঝে শিক্ষার আলো ছড়াচ্ছে নাজিপুর ইউনিয়নের জয়ন্তী আইডিয়াল নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়। প্রতিষ্ঠার পর থেকে বিদ্যালয়টি এলাকায় শিক্ষা বিস্তারে আপ্রান চেষ্টা চালিয়ে সফলতা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে। বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি অ্যাডভোকেট আবু হানিফ জানান নাজিপুর ইউনিয়নের পূর্বনাজিরপুর গ্রাম ও এর পাশ্ববর্তী এলাকার অবহেলিত ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য স্থানীয় কুতুব উদ্দীন ১৯৯৮ সালে জয়ন্তী আইডিয়াল ল্যাবরেটরী নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠা করেন। প্রতিষ্ঠার পর বিদ্যালয়টিতে শিক্ষার্থী সংখ্যা বৃদ্ধি পেতে থাকে। কিন্তু ২০০৭ সালের ১৫ নভেম্বর ভয়াবহ সিডরের আঘাতে জয়ন্তী আইডিয়াল ল্যাবরেটরী নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়টির ঘরটি সম্পূর্ণ বিধ্বস্ত হলে শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা বিপাকে পড়েন। পরবর্তীতে বেশ কয়েক বছর বিদ্যালয় কার্যক্রম বন্ধ থাকলে এলাকায় প্রাথমিক থেকে ঝড়ে পড়া শিক্ষার্থীদের সংখ্যা বাড়তে শুরু করে। পরবর্তীতে স্থানীয়রা উদ্যোগ নিয়ে ২০১৬ সালে পুনরায় কার্যক্রম শুরু করে। ফলে এলাকার প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের ঝড়ে পড়ার সংখ্যা হ্রাস পায় এবং অধিকাংশ শিক্ষার্থী এ বিদ্যালয় থেকে জেএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে বিভিন্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয় ভর্তির সুযোগ পাচ্ছে। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সাইফুল ইসলাম তালুকদার জানান বর্তমানে এ বিদ্যালয় শতাধিক শিক্ষার্থী রয়েছে। মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের বরিশাল অঞ্চলের উপ-পরিচালক ২০২০ সালের ১ জানুয়ারি থেকে ২০২২ সালের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত বিদ্যালয়টি পাঠদানের মেয়াদ বৃদ্ধি করেছে। বিদ্যালয়টির কার্যক্রমে সন্তোষ প্রকাশ করে ১০টি ইতিবাচক শর্ত সাপেক্ষে পাঠদানের অনুমোদনের মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে। মুলাদী উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আব্দুস সালাম জানান নদী ভাংগন কবলিত এলাকায় প্রতিষ্ঠিত জয়ন্তী আইডিয়াল ল্যাবরেটরী নিন্ম মাধ্যমিক বিদ্যালয়টি স্থানীয় শিক্ষার্থীদের অনেক উপকারে আসছে। বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার পর থেকে এলাকায় ঝড়ে পড়া শিক্ষার্থীর সংখ্যা অনেকাংশে কমে এসেছে। বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি অ্যাডভোকেট আবু হানিফ জানান জয়ন্তী আইডিয়াল ল্যাবরেটরী নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মাধ্যমে আমরা এলাকায় শিক্ষা বিস্তারে আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। এলাকাটি নদী ভাঙ্গন কবলিত, অবহেলিত ও চরাঞ্চলে অবস্থিত। এখানে নিন্ম আয়ের মানুষের বসবাস বেশি। দূরে প্রতিষ্ঠানে গিয়ে এই অঞ্চলে শিক্ষার্থীদের লেখাপড়া করতে অনেক কষ্ট ও দুভোর্গের শিকার হতে হয়। শিক্ষার্থীদের সুবিধার্থেই জয়ন্তী আইডিয়াল ল্যাবরেটরী নিন্ম মাধ্যমিক বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে।

Please follow and like us:
এই ক্যাটাগরীর আরো খবর

বিজ্ঞাপন